Standard Operating Procedure (SOP) । স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউরস (এস ও পি) for Garments Industries


Standard Operating Procedure (SOP)


Standard Operating Procedure (SOP)

স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউরস (এস ও পি)


 ভূমিকাঃ 

এই প্রতিষ্ঠানে বিশাল সংখ্যাক পুরুষ ও মহিলা ষ্টাফ ও শ্রমিক কর্মরত রয়েছেন। কারখানায় প্রবেশের পর থেকে প্রস্থান পর্যন্ত একজন শ্রমিককে স্ব-স্ব দায়িত্বে দক্ষতা প্রদর্শনসহ বিভিন্ন বিষয়ে সচেতন থাকতে হয়। প্রতিষ্ঠানের সকল স্তরের শ্রমিকগনের করনীয় নির্ধারন ও সচেতনতা সৃষ্টির উদ্দেশ্যেই স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউরস (এই এস ও পি/SOP) প্রনয়ন করা হয়েছে। 

উদ্দেশ্যঃ

XYZ Ltd. এর জন্য একটি যথোপযোগী স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিউরস (এস ও পি/SOP) প্রনয়ন করা।


সকলের জন্য করনীয় :

ফ্যাক্টরীর সকল স্তরের শ্রমিকগনের জন্য নিন্মোক্ত নীতিমালা অবশ্যই অনুকরনীয় বলে বিবেচ্য হবে ঃ
  1. পরিস্কার পরিচ্ছন্ন হয়ে পরিপাটি পোষাকে ফ্যাক্টরীতে প্রবেশ করা।
  2. ফ্যাক্টরীতে প্রবেশের পূর্বে জুতা/স্যান্ডেল খুলে হাতে নেয়া এবং ফ্লোরের নির্ধারিত স্থানে রাখা। টিফিন বক্স নির্দিষ্ট স্থানে রাখা।
  3. ফ্যাক্টরীতে প্রবেশের সময় হাজিরা কার্ড টাইম কিপারের নিকট জমা দেয়া এবং ফ্যাক্টরী ত্যাগের পূর্বে টাইম কার্ড সংগ্রহ করে সেখানে সঠিকভাবে সময় লিপিবদ্ধ আছে কিনা চেক করে স্বাক্ষর দেয়া। 
  4. কাজের সময় অপ্রয়োজনীয় কথাবার্তা বা খোশগল্পে লিপ্ত না হওয়া।
  5. টয়লেটে প্রবেশের পূর্বে স্যান্ডেল পরিধান করা। 
  6. টয়লেট ব্যাবহারের পূর্বে ফ্লাশ করা। 
  7. টয়লেট বা ডাইনিং এ পানির অপচয় না করা।
  8. কোন প্রকার ছোট খাট আইটেম নিয়ে টয়লেটে প্রবেশ না করা এবং টয়লেটের ভিতর কোন প্রকরের অবাঞ্চিত বস্তু না ফেলা।
  9. কোন প্রকার চর্মরোগে আক্রান্ত হলে কর্তৃপক্ষকে অবহিত করে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা এবং রোগ না সারা পর্যন্ত  কাজে বিরত থাকা।
  10. থুথু, ময়লা, আবর্জনা নির্দিষ্ট স্থানে ফেলা। 
  11. খাবারের পূর্বে ও পরে ভাল করে হাত, মুখ ও প্লেট পরিস্কার করা।
  12. বেসিনে ভাত বা তরকারী না ফেলা। 
  13. পানি পানের জন্য নিজের জন্য নির্দিষ্ট গøাস ব্যবহার করা। 
  14. ধুমপান বা নেশা জাতীয় কোন বস্তু গ্রহন থেকে বিরত থাকা। 
  15. জানালা দিয়ে বাইরে কোন কিছু না ফেলা। 
  16. অপ্রয়োজনীয় চলা-ফেরা ও কথাবার্তা থেকে বিরত থাকা। 
  17. নামাজ ও লাঞ্চ বিরতি এবং কাজের শেষে নির্দিষ্ট কর্মস্থান ত্যাগের পূর্বে সকল আইটেম যথাযথ ভাবে রাখা। 
  18. অকারনে এবং অনুমতি ছাড়া অন্য কোন ফ্যাক্টরী বা ফ্লোরে প্রবেশ না করা। 


উপসংহার

ফ্যক্টরীতে কর্মরত সকল শ্রমিকগনের জন্য উপরোক্ত নীতিমালা সম্বন্ধে জানা ও যথাযথ ভাবে পালন করা বাধ্যতামূলক। সামান্য অসতর্কতা বা ভূল বড় ধরনের দূর্ঘটনার সৃষ্টি করতে পারে যা থেকে জান ও মালের প্রভুত ক্ষতি সাধন হতে পারে।


সুইং সেকশন

সুইং সেকশনে কর্মরত শ্রমিকগন নিম্নে বর্নিত নীতিমালা অনুসরণ করবেঃ

  1. কাজের সময় নিজের জন্য নির্দিষ্ট মেশিন/টেবিলে স্থান গ্রহন করা।
  2. মেশিন বা কাজের স্থানের পরিচ্ছন্নতা নিশ্চিত করা।
  3. কাজের স্থানে রক্ষিত সকল সমগ্রী গুছিয়ে রাখা।
  4. কাজের শুরুতে মেশিনে তেল যথাযথ এবং মানসম্মত ভাবে আছে কিনা তা চেক করা। সমস্যা থাকলে সুপারভাইজারকে জানানো। 
  5. মেশিনে সেফ্টি ডিভইস (নিডেল গার্ড, গ্লাস কভার, মোটর বেল্ট কভার ইত্যাদি) যথাযথ ভাবে সংযুক্ত আছে কিনা তা চেক করা। 
  6. মেশিনের সাথে বৈদ্যুতিক তারের অতিরিক্ত অংশ টেপ দিয়ে বেধেঁ রাখা যাতে তার ঝুলে না থাকে।
  7. সিজার/কাটার মেশিনের সাথে এমন ভাব বেধেঁ রাখতে হবে যাতে পড়ে গেলে মেঝে স্পর্শ না করে।
  8. নিডেল ভেঙ্গে গেলে সকল ভাঙ্গা অংশ সংগ্রহ করে নিডেল ম্যানের কাছে জমা করে নতুন নিডেল ইস্যু করা। 
  9. ভাঙ্গা নিডেলের কোন অংশ খুজে পাওয়া না গেলে গার্মেন্টস ভাল ভাবে চেক করবে (প্রয়োজনে মেটাল/নিডেল ডিটেক্টর ব্যবহার করবে)। 
  10. পিস আয়রন প্রেসিং শেষে নির্দিষ্ট রেকে রাখবে (কখনোই তা কাপড় বা টেবিলের উপর ফেলে রাখবে না, এতে অগ্নিকান্ডের সুত্রপাত হতে পারে। 
  11. ফ্লোরে অবস্থান কালীন সময় মুখোশ এবং স্কার্ফ (মহিলাদের ক্ষেত্রে) ব্যাবহার করা। মেশিনের সাথে প্রয়োজনীয় কার্ড সমূহ আছে কিনা তা চেক করা। 
  12. ওভারলক মেশিনের সাথে সংযুক্ত ব্যাগ নিয়মিত বিরতিতে পরিস্কার করা। 
  13. কাজের শুরুতে মেশিনে কোন প্রকার কারিগরী ত্র“টি আছে কিনা তা চেক করা (টেনশন ঠিক করা ইত্যাদি) 
  14. কাজের সময় যাতে গার্মেন্টস্ বা অন্য কোন এ্যাকসেসরিজ মেঝেতে না পড়ে সে বিষয়ে লক্ষ রাখা।
  15. বারটেক মেশিনের সামনে বেল্ট কভার আছে কিনা তা চেক করা। 
  16. কাজের সময় কোন প্রকার সমস্যা হলে দ্রুত সুপারভাইজারকে অবহিত করা। 
  17. কোথাও বৈদ্যুতিক খোলা কোন তার থাকলে তা অবশ্যই ইলেক্ট্রিশিয়ানকে জানাতে হবে। 
  18. স্ন্যাপ বাটন মেশিনের বেল্টকভার না থাকলে মেশিন চালানো যাবে না। 
  19. যে সমস্ত মেশিন প্যান্ডেলের সাথে চেইন দ্বারা সংযুক্ত থাকে, সেই সমস্ত মেশিনে চেইনের পরিবর্তে সুতা, তার কিংবা রশি দ্বারা সংযোগ করে মেশিন চালানো যাবে না। 
  20. নাটবোল্টু নাই, ঝালাই খুলে গেছে কিংবা অন্য কোন কারন বশত: মেশিনের টেবিল ষ্ট্যান্ড নাড়াচাড়া করে সেই সমস্ত মেশিনে কাজ করা যাবে না। 
  21. প্যাডেল কিংবা ষ্ট্যান্ডের মধ্যে অপারেটর এর শরীর ক্ষত হয়ে যাবে এমন কোন ধারালো অবস্থা থাকবে না। 
  22. মেশিন চালানোর সময় মেশিন কাঁপলে কিংবা অস্বাভাবিক কোন শব্দ হলে মেশিন চালানো যাবে না। 
  23. মেশিন চলাকালীন সময়ে কারো সাথে কথা বলা যাবে না। 
  24. অসুস্থ শরীরে কিংবা তন্দ্রা বা ঝিমুনী আসিলে মেশিন চালানো যাবে না। 
  25. স্ন্যাপ বাটন মেশিনে প্রতি চাপের সময় আঙ্গুল নিরাপদ স্থানে আছে কিনা সেই দিকে লক্ষ রাখতে হবে। 
  26. স্ন্যাপ বাটন মেশিনে রিপিট ব্লাপের নিচের পার্ট দেয়ার আগে উপরের পার্ট মোল্ডে দিতে হবে। 
  27. মেশিন চালানোর সময় শাড়ি, ওড়না, স্যালোয়ার কামিজ যাতে মেশিনের ঘুর্নয়মান অংশের সাথে জড়িয়ে না যায় সেদিকে সর্বদা লক্ষ্য রাখতে হবে। 
  28. কাজ করবার সময় চুল খোপা বা বেনী বেধেঁ কাজ করতে হবে। চুল খোলা অবস্থায় কাজ করা যাবে না। 
  29. বাটন হোল বাটন ষ্টীজ, ওভার লক, বারটেক মেশিনে সেফ্টি গ্লাস থাকতে হবে অথবা গগলস ব্যবহার করতে হবে। 
  30. প্রয়োজনীয় মেশিন নিডেল গার্ড ব্যতিত মেশিন চালানো যাবে না। মেঝেতে ষ্ট্য্ন্ডা সমান ভাবে না বসিয়ে, মেশিন নড়া চড়া করে এমতাবস্থায় মেশিন চালানো যাবে না।  


ফিনিশিং সেকশন 

নিম্নোক্ত নীতিমালা মেনে চলবেঃ

  1. মুখোশ ব্যবহার করা। 
  2. স্পট রিমুভার মেশিন অপারেটরের কাজের সময় গ্যাস মাস্ক ও গ্লভস ব্যবহার করা। 
  3. দাঁড়িয়ে কাজ করার ক্ষেত্রে ফ্লোর ম্যাট ব্যবহার করা। 
  4. সিজার, কাটার সতর্ক ভাবে ব্যবহার করা। 
  5. প্রতিদিন কাজের পূর্বে এই শাখায় ব্যবহারিত সকল মেশিন সমূহ যথাযথ ভাবে চেক করা। 
  6. মেশিনের সেফ্টি ডিভাইস যথাযথ ভাবে সংযুক্ত আছে কিনা তা চেক করা। 
  7. প্রয়োজনে সেফটি চশমা ব্যবহার করা। 
  8. অব্যবহৃত অবস্থায় আয়রন নির্দিষ্ট রেকে রাখা। 
  9. গ্রাইন্ডিং মেশিন সতর্কতার সাথে ব্যাবহার করা যাতে শরীরের কেন অংশের সাথে স্পর্শ না হয়। 


উপসংহারঃ

ফ্যক্টরীতে কর্মরত সকল শ্রমিকগনের জন্য উপরোক্ত নীতিমালা সম্বন্ধে জানা ও যথাযথ ভাবে পালন করা বাধ্যতামূলক। সামান্য অসতর্কতা বা ভূল বড় ধরনের দূর্ঘটনার সৃষ্টি করতে পারে যা থেকে জান ও মালের প্রভুত ক্ষতি সাধন হতে পারে। 



কাটিং সেকশন

নিন্মোক্ত নীতিমালা মেনে চলবেঃ

  1. মুখোশ ব্যবহার করা। 
  2. ঢিলেঢালা পোষাক পরিধান করে কাজ না করা।
  3. সিজার, কাটার সতর্ক ভাবে ব্যবহার করা।
  4. মেটাল হ্যান্ড গ্লোভস ব্যবহার করা। 
  5. প্রয়োজনে সেফটি চশমা ব্যবহার করা।
  6. মেশিন বা কাজের স্থানের পরিচ্ছন্নতা নিশ্চিত করা।
  7. কাজের স্থানে রক্ষিত সকল সামগ্রী গুছিয়ে রাখা।


উপসংহারঃ

ফ্যক্টরীতে কর্মরত সকল শ্রমিকগনের জন্য উপরোক্ত নীতিমালা সম্বন্ধে জানা ও যথাযথ ভাবে পালন করা বাধ্যতামূলক। সামান্য অসতর্কতা বা ভূল বড় ধরনের দূর্ঘটনার সৃষ্টি করতে পারে যা থেকে জান ও মালের প্রভুত ক্ষতি সাধন হতে পারে। 



নিটিং সেকশন

নিন্মোক্ত নীতিমালা মেনে চলবেঃ

মেশিন চালু দেওয়ার পূর্বে-

  1. ভালভাবে মেশিন পরিষ্কার করে নিতে হবে।
  2. মেশিন চালু করার আগে সকল ক্যাম চেক করে নিতে হবে।
  3. নিটিং জোনের কাছাকাছি কোন অপ্রয়োজনীয় কিছু থাকলে, সরিয়ে ফেলতে হবে।
  4. সকল গেট ভালভাবে  আটকিয়ে নিতে হবে।
  5. টেকডাউন মোটর এর কাছ থেকে কোন অপ্রয়োজনীয় জিনিস থাকলে সরিয়ে ফেলতে হবে।
  6. প্যানেল বোর্ড ও অন্যন্য দরজা সমূহ বন্ধ করে নিতে হবে।
  7. তেল লেভেল চেক করে নিতে হবে।

মেশিন চালু অবস্থায়-

  1. মেইন পাওয়ার অন করতে হবে।
  2. জগ সুইচ চেপে ধরে রান সুইচ চাপতে হবে।
  3. ফেব্রিক টেনসন চেক করতে হবে।
  4. মেশিন চালু অবস্থায় নিডিল এর গায়ে হাত দেওয়া যাবে না।
  5. বেল্ট/কনি এর কাছাকাছি কিছু রাখা যাবে না।
  6. কোন সমস্যা লক্ষ্য করা গেলে জরুরী ভিত্তিতে মেইনটেন্যান্স বিভাগে জানাতে হবে।
  7. নির্ধারিত আরপিএমএ মেশিন চালানো।
  8. মেশিনের হুইল ফ্রি আছে কি না, কোন ক্যাম বক্স লুজ আছে কি না চেক করা। 
  9. নিডেল ডিটেক্টর, ফেব্রিক ডিটেক্টর ও ইলেকট্রিক কানেকশন চেক করা।